কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় মানিকারচর বাজারের নুরু ডাক্তারের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ।

কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় মানিকারচর বাজারের নুরু ডাক্তারের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ডাক্তারির পাশাপাশি সে একজন ভন্ড পীর ও বটে। সে শিকিরগাঁও গ্রামের ভন্ড পীর গোলাম মোস্তাফার অনুসারী। ডাক্তার পেশার পাশাপাশি সে পীরালী ব্যবসা করে। সে সব নারীরা সন্তান নাই,তাদেরকে জি¦ন সাধনের মাধ্যমে সন্তান দান করে। সে এবং তাহার স্ত্রীর সহযোগিতায় বহু মেয়ের জীবন নষ্ট হয়েছে। চিকিৎসার নামে মেয়েদের সন্ধ্যার পর তাহার বাড়ীতে আসতে বলে। সন্ধ্যার পর বাড়ীতে আসলে তাহার আস্তানায় রাত হলে জ্বীন আসে। সেই জ্বীনে মেয়েদের সন্তান দিয়ে যায়। ভূক্তভোগীরা লোজলজ্জার ভয়ে কাউকে ঘটনা জানায় না। ভন্ড পীর ডাক্তার নুরু বলে দেয়,কাউকে জানালে তোর বংশ নির বংশ হয়ে যাবে। গভীর রাত হলে তাহার ঘরের পূর্ব পাশের রোমে বা তাহার পীর গোলাম মোস্তফার দরবারে নিয়ে যায়। সেখানে আগের থেকে পাশে বহু পুরুষ থাকে। বাতি নিভিয়ে ডাক ঢোল বাজালে জ্বিন আসে। আগে থেকে বলা হয় মহিলা যেন কোন প্রকার মোবাইল বা আলো জাতিয় বস্তু নিয়ে আস্তানায় প্রবেশ না করে। জ্বিন আসে শুরু করে খেলা। জ্বীন বেশে পুরুষটি হচ্ছে ডাঃ নুরু। জ্বীন ধর্ষন করে মহিলার গর্ভে সন্তান দেয়। ধর্ষিত মহিলা চিকিৎসার নামে প্রতারিত হয়ে সম্মানের ভয়ে কাউকে কিছু বলতে পারে না। এইভাবে অগনিত মহিলার মান সম্মান নষ্ট করেছে ভন্ড পীর ডাঃ নুরু। আমরা অত্যাচারিত মহিলাদের নাম প্রকাশ করলাম না। (চলবে)

Leave a Reply