এবার সাকিবকে ছাড়া হারল কলকাতা।

টানা দ্বিতীয় ম্যাচে সাকিব আল হাসানকে ছাড়া একাদশ সাজিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। তবে ফলাফল অনুসরণ করল না প্রথম ম্যাচকে। সাকিবকে ছাড়া প্রথম ম্যাচ জিতলেও বোলারদের ব্যর্থতায় দ্বিতীয় ম্যাচে হারল কলকাতা।

বুধবার রাতে ইডেন গার্ডেনসে বড় স্কোর গড়েও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কাছে ৬ উইকেটে হেরেছে কলকাতা। ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৮৭ রান করেছিল কলকতা। এক প্রান্তে থেকে দারুণ ব্যাটিংয়ে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মুম্বাইকে এগিয়ে নিয়েছেন রোহিত শর্মা, শেষ দিকে খুনে ব্যাটিংয়ে সময়ের দাবি করেছেন জস বাটলার। জিতেছে তারা শেষ ওভারের প্রথম বলে।
সাকিবকে বাইরে রেখে একাদশে রাখা বিদেশি স্পিনার ব্র্যাড হগ সুবিধে করতে পারেননি একটুও। ৪ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে উইকেটশূন্য অস্ট্রেলিয়ান চায়নাম্যান বোলার।

আরেক বিদেশি জন হেস্টিংস উইকেটশূন্য ৪ ওভারে ৩১ রান দিয়ে। ব্যাট হাতে ভালো করলেও বোলিংয়ে ৪ ওভারে ৫২ রান গুণেছেন আন্দ্রে রাসেল।
টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা কলকাতার ইনিংসের মেরুদণ্ড ছিল গৌতম গম্ভীর ও মনিশ পান্ডের জুটি। দ্বিতীয় উইকেটে ১০ ওভারে ১০০ রানের জুটি গড়েন দুজন। ৫২ বলে ৬৪ রান করেন অধিনায়ক গম্ভীর, ২৯ বলে ৫২ পান্ডে। শেষ দিকে রাসেলের ১৭ বলে ৩৬ রানে কলকাতা ছাড়িয়ে যায় ১৮০।

রোহিত ও পার্থিব প্যাটেলের (২৩) ৫৩ রানের উদ্বোধনী জুটিতে মুম্বাই পায় ভিত্তি। তিনে নেমে সুবিধা করতে পারেননি হার্দিক পান্ডিয়া (৯)। মুম্বাই চমক দেখায় পেসার মিচেল ম্যাকক্লেনাগনকে চার নম্বরে নামিয়ে।

ম্যাকক্লেনাগস আরও বড় চমক দেখান ব্যাট হাতে। ৮৫ টি-টোয়েন্টিতে যার আগের সর্বোচ্চ ছিল ১৬, ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পেয়ে এদিন তিন ছক্কায় তিনি করেন ৮ বলে ২০! কিউই পেসারের কল্যাণে রান-বলের টানাপোড়েনে খানিকটা এগিয়ে যায় মুম্বাই।
শেষ ৬ ওভারে মুম্বাইয়ের প্রয়োজন ছিল ৬৬। দলকে জয়ের পথে এগিয়ে নেয় রোহিত-বাটলারের জুটি। ৪০ বলে ৬৬ রানের জুটি গড়েন দুজন। ২২ বলে ৪১ রান করেন বাটলার। দারুণ সব স্ট্রোক সমৃদ্ধ নিয়ন্ত্রিত এক ইনিংসে ৫৪ বলে ৮৪ রানে অপরাজিত রোহিত।

সাকিবদের পরের ম্যাচ আগামী শনিবার, হায়দরাবাদে মুস্তাফিজুর রহমানের সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে।

Leave a Reply